1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. ukbanglatv21@gmail.com : Kawsar Ahmed : Kawsar Ahmed
বদলে গেছে রাঙ্গাবালীর চিত্র - বাংলার কন্ঠস্বর ।। Banglar Konthosor
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০২:১৮ অপরাহ্ন

বদলে গেছে রাঙ্গাবালীর চিত্র

  • প্রকাশিত :প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৩৬ 0 বার সংবাদি দেখেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক // তিন দিকে নদী আর একদিকে বঙ্গোপসাগর। এরই মাঝে ৪৭০ বর্গ কিলোমিটারের দ্বীপ নাম রাঙ্গাবালী। ২০১২ সালের আগে এটি পটুয়াখালীর জেলার একটি অবহেলিত ইউনিয়ন ছিল।

বেশির ভাগ রাস্তাঘাট ছিল কাঁচা। অনুন্নত ছিলো যোগাযোগ ব্যবস্থাও। ছিল না বিদ্যুৎ। ২০১২ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি এই দ্বীপটিকে উপজেলা ঘোষণা করা হয়। আর এরপর মাত্র ১১ বছরে এসেছে দ্বীপটির আমূল পরিবর্তন। এখন উপজেলার প্রত্যেক ঘরে পৌঁছে গেছে বিদ্যুৎ। বদলে যেতে শুরু করেছে মানুষের ভাগ্য।

প্রায় ২০০ বছরের পুরনো এই জনপদ যুগ যুগ ধরে ছিলো অন্ধকারাচ্ছন্ন। ২০২১ সালে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে এখানে দেওয়া হয় বিদ্যুৎ সংযোগ। ভোলা থেকে তেতুলিয়া নদীর তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে এখানে বিদ্যুত আনা হয়। এখন শতভাগ বিদ্যুতায়নের উপজেলা রাঙ্গাবালী।

বিদ্যুৎ পৌছানোর পরপরই বদলে যায় মৎস্য ও কৃষি নির্ভর এ জনপদের মানুষের ভাগ্য। বিদ্যুৎ আসার পর দ্বীপ এই উপজেলায় একের পর এক গড়ে উঠেছে বরফ কল।

এক সময় এখানকার জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা বরফ সংকটের কারণে ও পচে যাওয়ার ভয়ে মাছ কম দামে বিক্রি করে দিতেন। কিন্তু এখন বরফে সংরক্ষিত মাছ যাচ্ছে দেশ-বিদেশে।

এই উপজেলার ৮২৯ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে পাকা হয়েছে ১৫০ কিলোমিটার সড়ক। বর্তমানে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মাণের কাজ। মোট কথা ১১ বছরে উন্নতির শিখরে পৌঁছেছে উপজেলাটি।

এদিকে, পটুয়াখালীর সঙ্গে এ উপজেলার নিরবিচ্ছিন্ন সড়ক ব্যবস্থার জন্য ফেরি চালুর প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। দ্রুত সময়ের মধ্যে গলাচিপার পানপট্টি থেকে রাঙ্গাবালীর কোড়ালিয়া নৌ-রুটে ফেরি ব্যবস্থা চালু হচ্ছে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

রাঙ্গাবালী সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাইদুজ্জামান মামুন বলেন, এ এলাকায় বিদ্যুৎ আসবে তা কখনো কল্পনাও করেনি সাধারন মানুষজন। আজ রাঙ্গাবালী শতভাগ বিদ্যুতায়নের উপজেলা।

গত ১১ বছরে এ উপজেলা অকল্পনীয় উন্নয়ন হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ সব সেক্টরে আমূল পরিবর্তন এসেছে। বিচ্ছিন্ন এ উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন হওয়ায় আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

পটুয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মহিব্বুর রহমান মহিব বলেন, আমি এমপি হওয়ার পর প্রথম সংসদ অধিবেশনে অবহেলিত রাঙ্গাবালীকে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি জানিয়েছিলাম।

তিনি নিজে হস্তক্ষেপ করে এই উপজেলায় সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়েছেন। উপজেলার ছয় ইউনিয়নের মধ্যে চার ইউনিয়নই উপজেলা সদর থেকে বিচ্ছিন্ন। সড়ক পথে এক ইউনিয়নের সঙ্গে অন্য ইউনিয়নের কোনো যোগাযোগ নেই।

এতো চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়েও সবকটা ইউনিয়নে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ আসার পরই বদলে যায় মানুষের ভাগ্য। তৈরী হতে শুরু করেছে শিল্প কারখানা।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Comments are closed.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ