1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. ukbanglatv21@gmail.com : Kawsar Ahmed : Kawsar Ahmed
সংকট কাটিয়ে আবারও উৎপাদনে আশুলিয়ার ৭০ কারখানা - বাংলার কন্ঠস্বর ।। Banglar Konthosor
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরনাম :
পদ্মা নদীতে গোসলে নেমে ৩ কিশোরের মৃত্যু ২৪ বছর কারাভোগ শেষে ভ্যান নিয়ে বাড়ি ফিরলেন ওলিউল নলছিটিতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে বরগুনায় ভোটারদের মধ্যে টাকা দেওয়া বন্ধে মাইকিং বাউফলে হিটস্ট্রোকে পুলিশ সদস্যের মৃত্যু সুনামগঞ্জে পৃথক ঘটনায় ২জনের মৃত্যু সুনামগঞ্জ সীমান্তে চোরাচালান বাণিজ্য জমজমাট, ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার নড়াইল জেলা পুলিশের অপরাধ পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন এসপি মেহেদী হাসান নড়াইল জেলা পুলিশ হাসপাতালের সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের নাম ফলক উদ্বোধন করেন এসপি মেহেদী হাসান লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টা, গ্রাম পুলিশ আটক 

সংকট কাটিয়ে আবারও উৎপাদনে আশুলিয়ার ৭০ কারখানা

  • প্রকাশিত :প্রকাশিত : রবিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৭৮ 0 বার সংবাদি দেখেছে

খোকন হাওলাদার, আশুলিয়া প্রতিনিধি (ঢাকা) // শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে অসন্তোষের জেরে শতাধিক কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণার পরদিনই খুলে দেওয়া হয়েছে ৭০টি কারখানা।

রোববার (১২ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকার আশুলিয়া শিল্প পুলিশ-১ এর পুলিশ সুপার সারোয়ার আলম ঢাকা পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

খোঁজ নিয়ে নিয়ে জানা যায়, আশুলিয়ার টঙ্গীবাড়ী, গৌরিপুর, আশুলিয়া, শ্রীখন্ডিয়া এলাকার বেশির ভাগ কারখানা খোলা রয়েছে। সেখানে শ্রমিকরা উৎপাদন কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। তবে জিরাবো এলাকার বেশির ভাগ কারখানা খোলা রাখার চেষ্টা করলে কন্টিনেন্টাল গার্মেন্টসের শ্রমিকরা বের হয়ে অন্যান্য কারখানায় ইটপাটকেল ছুড়লে ওই এলাকার সব কারখানা ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিকরা সড়কে নেমে বিক্ষোভ করেন। এছাড়া শ্রমিকরা বিভিন্ন কারখানায় হামলা ও ভাঙচুর চালায়। তাই পোশাক কারখানাগুলোর নিরাপত্তার স্বার্থে গতকাল ১৩০টি কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। এদিন শ্রমিকরা তাদের কর্মস্থলে গিয়ে অনির্দিষ্টকালের নোটিশ দেখে ফিরে যান। তবে বন্ধ ঘোষণার পরের দিনই (রোববার) শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার ৭০টি কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে।

এসব কারখানায় শ্রমিকরা সকালে উপস্থিত হয়ে উৎপাদন শুরু করেছেন। তবে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের দুই পাশের বেশির ভাগ কারখানাগুলো এখনো বন্ধ রাখা হয়েছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Comments are closed.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ