1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. ukbanglatv21@gmail.com : Kawsar Ahmed : Kawsar Ahmed
সুনামগঞ্জে ৩ দিনে নারী ও পুলিশের এএসআইসহ ৬ জনের মৃত্যু - বাংলার কন্ঠস্বর ।। Banglar Konthosor
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে ৩ দিনে নারী ও পুলিশের এএসআইসহ ৬ জনের মৃত্যু

  • প্রকাশিত :প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ২৪ 0 বার সংবাদি দেখেছে

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ // সুনামগঞ্জে গত ৩দিনে পৃথক ঘটনায়
এক নারী ও পুলিশসহ ৬জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ পৃথক স্থান
থেকে মৃতদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- গতকাল মঙ্গলবার (২রা এপ্রিল) দুপুরে
জেলার ছাতক উপজেলার কালারুকা-লালপুর নামকস্থান সিএনজি ও অটোরিক্সার মধ্যে
মুখোমুখি সংঘর্ষ বাঁধে। এঘটনায় সিএনজিতে থাকা যাত্রী রাহেনা বেগম
(২৩) গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য
কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষনা করে। মৃত যাত্রী
সিলেট জেলার জালালাবাদ থানার আলীনগর গ্রামের আখলিছ আলীর মেয়ে।
দূঘর্টনার খবর পেয়ে সন্ধ্যায় পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।
এদিকে গত সোমবার (১ এপ্রিল) রাত ১০টায় জেলার শান্তিগঞ্জ উপজেলার থলেরবন্দ
গ্রামের রাস্তার পাশে ওই গ্রামের আশিক আলী বাড়ির সামনে একটি ঘোড়া
গাছের সাথে বেঁধে রাখে একই গ্রামের শের আলী। ওই সময় আশিক আলীর ছেলে
ফরিদ আলী তার বাড়িতে যাওয়ার সময় ওই বেঁধে রাখা ঘোড়াটি তাকে লাথি মারলে
সে আহত হয়। এঘটনার জের ধরে দু‘পক্ষের মধ্যে প্রথমে কাটাকাটি, পরে
হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। ওই সময় উপস্থিত স্থানীয় লোকজন ঘটনাটি তাৎক্ষণিক
ভাবে সমাধান করে দেন। কিন্তু তারই জের ধরে রাত ১২টায় দুইপক্ষের লোকজন দেশীয়
অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে ডাকাডাকি করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। আর এই সংঘর্ষের
উভয়পক্ষের ২৫জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় নুর মোহাম্মদ (২২)
কে রাতেই সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও আব্দুল আউয়াল
(৫৫) কে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতাল নিয়ে ভর্তি করা হয়। এছাড়া অন্যান্য
আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এমতাবস্থায় আজ
মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সকাল ১০টা আহত আব্দুল আউয়াল ও গতকাল সোমবার (১
এপ্রিল) রাত ২টায় নুর মোহাম্মদ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এঘটনার খবর

পেয়ে পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে দুইপক্ষের ৬জনকে গ্রেফতার করেছে। এঘটনার
পর থেকে ঘটনাস্থল ও আশেপাশে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আইন শৃংখলা
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।
অন্যদিকে গত সোমবার (১ এপ্রিল) সকাল ১১টায় দিরাই উপজেলার ধল গ্রামের
বাসিন্দা গৃহবধু ফাহিমা বেগম (৩৯) তার ১৮ মাসের শিশুকন্যাকে নিয়ে ভাড়ায়
যাত্রী পরিবহণ করা মোটর সাইকেল যোগে পাশে রনভূমি গ্রামের যাওয়ার সময়
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটর সাইকেল থেকে রাস্তা পড়ে যায়। এঘটনায় ওই গৃহবধু তার
মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে গুরুতর আহত হয়। সেই সাথে তার শিশুকন্যাও। পড়ে
স্থানীয়রা মা ও মেয়ে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে
যাওয়ার পর গৃহবধু ফাহিমাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। আর আহত শিশুকন্যাকে ভর্তি
করা হয়।
অপরদিকে গত রবিবার (৩১ শে মার্চ) সকাল ১১টায় সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক
মহাসড়কের শান্তিগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের নোয়াগাঁও এলাকায়
প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুটির সাথে ধাক্ষা লেগে এএসআই
মহিউদ্দিন আহমদ (৩৫) ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন। ওই সময় গাড়ি চালক
এএসআই মামুন গুরুতর আহত হয়। তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল
কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদিকে এদিন ভোর ৪টায় প্রতিপক্ষের
ক্ষুড়ের আঘাতে গুরুতর আহত ব্যবসায়ী আমির উদ্দিন (৪৮) সুনামগঞ্জ জেলা সদর
হাসপাতালে মারা যায়। ওই ব্যবসায়ী সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের
মঈনপুর গ্রামের বাসিন্দা। এঘটনার প্রেক্ষিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রতিপক্ষ
গ্রুপের মজনু মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।
সুনামগঞ্জ সদর থানার ওসি খালেদ চৌধুরী, শান্তিগঞ্জ থানার ওসি মোক্তাদির
হোসেন, দিরাই থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, ছাতক থানার এসআই
আসাদুজ্জামান পৃথক ঘটনায় ৬জনের মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান-
এব্যাপারে থানায় পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Comments are closed.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ