1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. ukbanglatv21@gmail.com : Kawsar Ahmed : Kawsar Ahmed
মুক্তিযুদ্ধে হারিয়ে ৫৩ বছর পর মাকে ফিরে পেলেন মেয়ে - বাংলার কন্ঠস্বর ।। Banglar Konthosor
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০২:৩৭ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধে হারিয়ে ৫৩ বছর পর মাকে ফিরে পেলেন মেয়ে

  • প্রকাশিত :প্রকাশিত : রবিবার, ১২ মে, ২০২৪
  • ১৪ 0 বার সংবাদি দেখেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক // পৃথিবীর সবচেয়ে আপন ও নিরাপদ আশ্রয়স্থল মা। যিনি সবার জায়গা নিতে পারেন, তবে তার স্থানে বসানো যায় না কাউকেই। যাকে নিয়ে যত গান, কবিতাই হোক না কেন তবুও যেন শেষ হয় না। যার মা নেই সেই জানে এই নামটির শূন্যতা।

তবে আবেগের এই নামের মানুষটি যদি বেঁচে থেকেও পাশে না থাকে, তা হলে যন্ত্রণা হয় সবারই। সেই যন্ত্রণায় দীর্ঘদিন ভোগার পর যদি কেউ মাকে কাছে পান সেটি যে কতটা আনন্দের তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আজ জানাব সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে ৫৩ বছর পর হারানো মাকে কাছে পেয়ে এক মেয়ের সীমাহীন আনন্দের কথা।

মাকে পেয়েই কেঁদে ফেলেন তিনি। সে কান্না মা হারা এক মেয়ের, মাকে ফিরে পাওয়ার আনন্দের কান্না। আর মায়ের অশ্রুসিক্ত চোখ ও জড়িয়ে ধরার দৃশ্য বলে দেয় নারী ছেঁড়া ধনকে বুকে পাওয়ার অনুভূতি।
ঘটনাটি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের।

মেয়ে উম্মে মুরসেলিনার বয়স তখন তিন বছর। সে সময় ভারতে যাওয়ার প্রাক্কালে বিচ্ছিন্ন হয়ে যান নিজ পরিবার থেকে। পরে এক ট্রাকচালকের কাছে আশ্রয় পান উম্মে মুরসেলিনা ও তার ছোট বোন। যুদ্ধের পর বাবাকে ফিরে পেলেও মাকে হারিয়ে ফেলেন।

তবে মা হারানোর বেদনায় কেঁদেছেন অহর্নিশ, মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে ফরিয়াদ জানিয়েছেন। কখনো ছাড়েননি হাল। ছোটবেলার ছবি নিয়ে খুঁজতে থাকেন মাকে। অর্ধশত বছরের চেষ্টায় এক পর্যায়ে জনপ্রিয় এক ইউটিউবারের সহযোগিতায় পাকিস্তানে খোঁজ পান মায়ের।

অবশেষে ঢাকা বিমানবন্দরে ৫৩ বছর পর দেখা হয়েছে সেই মা-মেয়ের। এবার তারা পাড়ি দিয়েছেন জন্মস্থান দিনাজপুরে, যেখান থেকে তারা বিচ্ছিন্ন হয়েছিলেন। মা-মেয়ের এ আনন্দ ছড়িয়ে পড়েছে সবার মধ্যে। তাদের একনজর দেখতে এখন বাড়িতে ভিড় করছেন অনেকেই।

উম্মে মুরসেলিনার বাড়িতে ছড়িয়ে পড়েছে পুনর্মিলনীর আনন্দ। ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় সেই মা ও মেয়েকে। মা-মেয়ের সঙ্গে এলাকাবাসীও জড়িয়ে পড়েন এই পুনর্মিলনীর আনন্দে। উম্মে মুরসেলিনা বলেন, জীবনের বিশেষ মুহূর্তগুলোতে মায়ের কথা বেশি মনে পড়ত। ৫৩ বছরের অতিবাহিত মুহূর্তগুলো যতটা কষ্টদায়ক ছিল, মাকে কাছে পেয়ে সেসব কষ্টগুলো ম্লান হয়েছে সীমাহীন আনন্দে। তার মেয়ে জামাইয়ের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করা পোস্টই মা-মেয়ের এই পুনর্মিলন ঘটিয়েছে।

চমন আরার নাতনি জামাই ও মেয়ে উম্মে মুরসেলিনার মেয়ে জামাই জাহিদুর রহমান নিটুল জানান, শাশুড়ির মা হারানোর গল্প শুনে সেই বিবরণ ও ছোটবেলার ছবি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানি শাশুড়ি চমন আরাকে সন্ধান করতে থাকেন তিনি। এক পর্যায়ে ২০২২ সালে খোঁজ মেলে তার। ৫৩ বছর পর এখন মা-মেয়ের মুখোমুখি প্রথম সাক্ষাৎ হয়েছে। এর আগে ভিডিওকলে কথা হয়েছে তাদের।

অশ্রুসিক্ত চোখে মা চমন আরা বলেন, মেয়ে হারানোর বেদনায় মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে সবসময় কাঁদতাম। সন্তানের ছবি দেখে দেখে অনেকটা নির্ঘুম কাটিয়েছি জীবনের ৫৩টি বছর। এখন মেয়ে, জামাই, নাতি পেয়েছি। এতে আমি অনেক খুশি।

প্রসঙ্গত, ছয় মাস এ দেশে থাকার কথা রয়েছে চমন আরার। গত শুক্রবার রাত ৯টার দিকে একটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তিনি। এর দুদিন পর রোববার দিনাজপুরে নিজের বাসায় মাকে নিয়ে আসেন মেয়ে উম্মে মুরসেলিনা।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Comments are closed.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ